World Asian Case Competition প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের প্রতিনিধি

একাডেমি  অব এশিয়ান বিজনেস (এএবি)  কর্তৃক আয়োজিত “World Asian Case Competition-2015” তে ঢাকা  বিশ্ববিদ্যালয়  তথা  বাংলাদেশের  একমাত্র  দল  ফাইনাল  রাউন্ডের জন্য মনোনীত হয়েছে। কোরিয়ার রাজধানী সিউলে অবস্থিত সাংকিয়ান কুয়ান ইউনিভার্সিটি প্রাঙ্গনে অনুষ্ঠিত এই প্রতিযোগিতায় চূড়ান্ত পর্ব অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২২শে আগস্ট তারিখে। যেখানে বাংলাদেশের পাশাপাশি বিশ্বের আরো ৯টি দেশের প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করছে।  ৩সদস্য বিশিষ্ট ‘এলজি ইলেক্ট্রনিক্স কেস টীম’ নামক বাংলাদেশের এই দলটিতে আছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের তিন শিক্ষার্থী, তারা হলেন- মোঃ মহিউদ্দীন ভুঁইয়া, শুভ্র ইম্মানুয়েল রোজারিও ও শাদমান হক। যারা সবাই বিজনেস ফ্যাকাল্টির বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থী।

dsdsda

সাধারনভাবে দেখা অন্য যেকোন কেস প্রতিযোগিতার চেয়ে কিছুটা ভিন্নতা পরিলক্ষিত হয়েছে এই প্রতিযোগিতায় যেখানে নিজেদেরকেই কোন একটি কেস তৈরি করে তার সমাধান নিজেদেরকেই বের করতে হয়েছে। প্রস্তাবনা প্রদান, কোম্পানী পছন্দকরণ, কেস সমাধান ইত্যাদি বিভিন্ন ধাপ পার করে এই দলটি এখন ফাইনাল রাউন্ডের জন্য প্রতিযোগিতা করবে। যেখানে পাওয়ার পয়েন্ট প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে সমগ্র বিষয়টিকে তুলে ধরতে হবে তাদের। বাংলাদেলের দলটি এলজি কোং এর উপর রিসার্চ করে তার উপর তার উপর কাজ করছে। সেখান থেকে তারা বিভিন্ন সুযোগ প্রাপ্তির পাশাপাশি পাবে অভিজ্ঞতা অর্জনের বিশাল এক সুযোগ। সেই সাথে ব্যবসায় জগতে তাদের ভবিষ্যত গঠন ও অন্যদের সাথে পরিচিত হবার বিশেষ সুযোগ ও পাবেন তারা। এছাড়া তাদেরকে সামসং এবং এলজি এর মত বিশ্ববিখ্যাত কোম্পানি এর কার্যক্রম ও কোরিয়ার রাজধানী সিউল দেখানোর ও বিশেষ ব্যবস্থা করা হবে।

চূড়ান্ত পর্বে আসার সফলতার পিছনে তারা অবশ্যই ধন্যবাদ জানিয়েছেন Case Doctor ও ShareDu’র সকল সদস্যকে,  বিজনেস ফ্যাকাল্টির ডীন প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াৎ-ঊল-ইসলাম এর সার্বিক তত্ত্বাবধানে এই বিশাল অর্জন সম্ভব  হয়েছে বলে মনে করেন টীমের সকল সদস্যরা।  সেই সাথে ফ্যাকাল্টির সম্মানিত শিক্ষক মোঃ সাইমুম হোসাইন এবং ১২তম ব্যাচের সাবেক শিক্ষার্থী হাসানুল কাদের মীর্জা ও আশিকুজ্জামান বাপ্পিকে ও তারা বিশেষ ভাবে স্মরণ করেছেন।

এক নজরে প্রতিযোগিতাটি

নাম: World Asian Case Competition-2015

স্থান: কোরিয়া, সিউল।

সময়: ২২শে আগস্ট (সকাল ৯.০০-দুপুর ১২.৩০)

ভেন্যু: সানকিয়ান কুয়ান ইউনিভার্সিটি।

অনুষ্ঠানের মূলভাব: ‘কিছু সৃষ্টিশীল কর্ম, সাথে চিরন্তন অভিজ্ঞতা’

লক্ষ্য: এশিয়ান বিভিন্ন ব্র্যান্ড গুলোকে বিশ্ব-দরবারে আরো শক্তিশালী অবস্থানে পৌঁছে দেওয়া।

পুরস্কার: ১ম স্থান- এএবি ট্রফি, স্কলারশিপ, ২০০০ মার্কিন ডলার।

২য় স্থান- এওয়ার্ড, সাথে ১০০০ মার্কিন ডলার সমমূল্যের স্কলারশিপ।

বাকি ৮টি টীমের জন্য থাকবে এওয়ার্ডের ব্যবস্থা।

সমাপ্তি: ২৪শে আগস্ট।

সর্বোপরি তারা তাদের দলের সাফল্যের ব্যাপারে চূড়ান্ত আশাবাদী। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও DUTIMZ পরিবারের পক্ষ থেকে তাদের জন্য শুভকামনা থাকলো, যেন তারা দেশের সম্মান বিশ্ব-দরবারে আরো একবার উঁচু করতে পারে।

এমদাদুল হক রন

Share Button
Print Friendly

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <strike> <strong>

Close
Please support the site
By clicking any of these buttons you help our site to get better